কায়াকিং অ্যাডভেঞ্চার- কর্ণফুলীর খরস্রোতায় হারিয়ে যাওয়া

©AponTours™

কায়াকিং এর জন্য “কায়াক” নামে এক ধরনের বিশেষ নৌকা ব্যবহার করা হয়।বর্তমান সময়ের অধিকাংশ কায়াকই ফাইবারগ্লাস, রোটোমোল্ডেড পলিথিন, থার্মোফর্মড প্লাস্টিক, ব্লো মোল্ডেড পলিথিন অথবা কার্বন কেভলার দিয়ে তৈরি৷ এছাড়া কার্বন ফাইবার এবং ফোম কোর ইত্যাদি বস্তুও ব্যবহার করা হয়৷ কিছু কিছু কায়াক প্লাই উড অথবা উড স্ট্রিপ ফাইবার গ্লাস দ্বারা আবৃত করার মাধ্যমে হাতে তৈরি করা হয়।


কায়াকের ইতিহাস খুঁজলে জানা যায় যে, কানাডার আলেস্কোতে প্রথম কায়াকের ব্যবহার শুরু হয়। এছাড়া গ্রিনল্যান্ডের দক্ষিণ –পশ্চিম উপকূলে বসবাসরত এস্কিমোরা সিল মাছ শিকারের জন্য, হালকা কাঠের তক্তা এবং সিলের চামড়া দিয়ে তৈরি এক প্রকারের নৌকা ব্যবহার করত। এই নৌকাগুলোতে বলা হত (Ice kayak).

কায়াকিংরত আপন ট্যুরসের পর্যটক দল ©AponTours™
কায়াকিংরত আপন ট্যুরসের পর্যটক দল ©AponTours™

১৯৮৪ সালে প্রথম আধুনিক কায়াকের ব্যবহার শুরু হয়। নিজ হাতে নৌকা চালানোর অভিজ্ঞতাটা নিতে চলে আসুন ‘কাপ্তাই কায়াক ক্লাব’। মনোরম পরিবেশে কর্ণফুলী নদীর খরস্রোতা পানিতে কায়াকিং করতে পারবেন যতক্ষন খুশি ততক্ষন।
একটি কায়াকিং বোটে সর্বোচ্চ ২ জন উঠতে পারবেন।যারা সাতার পারেন না তাদেরকে কায়াকিং এর আনন্দ থেকে বঞ্চিত করছে না কায়াক ক্লাব।সবার জন্যই আছে লাইফ জ্যাকেটের ব্যবস্থা।জরুরী প্রয়োজনে ঘাটে রাখা আছে ইঞ্জিন নৌকা।কায়াক ক্লাব কর্তৃপক্ষ বোট ভাড়া দেয় আধা ঘন্টা এবং এক ঘন্টা হিসেবে।
প্রাকৃতিক সৌন্দর্যকে সঙ্গে নিয়ে ইচ্ছেমতো নৌকা চালানোর শখ পূরণ করতে পারেন এবার খুব সহজেই। বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো কায়াকিং করার সুযোগ নিয়ে এসেছে কায়াকিং অ্যাডভেঞ্চার বাংলাদেশ এর কাপ্তাই কায়েক ক্লাব।

©AponTours™

কায়াকিং অ্যাডভেঞ্চার বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠাতা মোহাম্মদ ইউসুফ রানা, কায়াকিং এর মূল আয়ডিয়া ছিল মেরিন ইঞ্জিনিয়ার আল আমিন পাভেলের। তাকে সঙ্গে নিয়ে ২০১৭ সালের ফেব্রুয়ারিতে শুরু করেছেন কাপ্তাই কায়াক ক্লাবের কার্যক্রম। 

©AponTours™

 কাপ্তাই কায়াকিং ক্লাবের উদ্যোক্তারা অবশ্যই প্রশংসা পাওয়ার দাবিদার। কারণ এমন ব্যতিক্রমী কিছু আমাদের মত পর্যটকদের উপহার দেয়ার জন্য। এতে কাপ্তাইয়ের পর্যটক সংখ্যা যেমন বাড়বে, তেমনই বাইরের দেশগুলোতেও বাংলাদেশের পর্যটনশিল্পের পরিচিতি বেড়ে যাবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *